পাপিয়ার মতো রাজনীতিবিদ দেশ ও জাতির জন্য মঙ্গলজনক নয় : বিচারক

নিউজ ডেস্ক : ‘পাপিয়াদের মতো এ ধরনের তথাকথিত রাজনীতিবিদ রাজনৈতিক ছদ্মাবরণে শুধু নিজেদের প্রাপ্তি নিয়ে ব্যস্ত থাকে। তারা দেশ ও জাতির জন্য কোনো কল্যাণমূলক কাজ করতে পারে না।’ সোমবার (১২

অক্টোবর) অ’স্ত্র আইনের মামলার রায় ঘোষণার আগে পর্যবেক্ষণে এসব কথা বলেন ঢাকা মহানগর ১ নম্বর স্পেশাল ট্রাইব্যুনালের বিচারক কেএম ইমরুল কায়েশ। রায়ে শামীমা নূর পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমান

সুমনকে ২০ বছর সশ্রম কা’রাদ’ণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া, গু’লি উ’দ্ধারের মামলায় তাদের আরও ৭ বছরের স’শ্র’ম কা’রাদ’ণ্ড দেওয়া হয়েছে। পর্যবেক্ষণে বিচারক বলেন, আসামি শামীমা নূর পাপিয়া ওরফে পিউ ও তার স্বামী মফিজুর রহমান ওরফে সুমন চৌধুরী ওৎপ্রোতভাবে রাজনীতিতে জড়িত ছিলেন। তবে তাদের সজ্জন কর্মী বা নেতা বলা যায় না। আসামিরা রাজনৈতিক কর্মী বা নেতা হলেও তাদের বাসায় এত বিপুল পরিমাণ নগদ

টাকা (৫৮ লাখ ৪১ হাজার টাকা) রাখার কোনো যৌক্তিক বা বৈধ কাগজ থাকতে পারে না। সুতরাং তাদের মতো এ ধরনের তথাকথিত রাজনীতিবিদ রাজনৈতিক ছদ্মাবরণে শুধু নিজেদের প্রাপ্তি নিয়ে ব্যস্ত থাকে। তারা দেশ ও জাতির জন্য কোনো কল্যাণমূলক কাজ করতে পারে না। তিনি বলেন, দেশ ও জাতির কল্যাণের চেয়ে যারা নিজেদের স্বার্থকে অগ্রাধিকার দেয়, তারা দেশ ও জাতির জন্য মঙ্গলজনক নয়। এধ’রনের রাজনীতিবিদ বা নেত্রী যেকোনো ধ’রনের অন্যায় কাজ করার জন্য অ’বৈ’ধ অ’স্ত্র সুবিধাজনকভাবে ব্যবহার করে। সুতরাং আসামিরা এধরনের অ’বৈ’ধ অ’স্ত্র বাসায় ডাইনিং রুমের খাটের নিচে লু’কিয়ে রেখেছিল, যে কোনো ধ’রনের অ’ন্যা’য় কাজে সুবিধাজনকভাবে ব্যবহার করার উদ্দে’শ্যে।

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *