রায়হানের ম’য়নাতদ’ন্তের রি’পোর্টে উঠে এসেছে যেসব ত’থ্য

ভোঁতা অ’স্ত্রের আ’ঘাতেই সিলেটের রায়হান আহমেদের মৃ’ত্যু হয়। প্রথম ম’য়নাত’দন্তের রিপোর্টে এ ত’থ্য উঠে এসেছে। এদিকে দ্বিতীয়

ম’য়নাত’দন্তের জন্য রায়হানের লা’শ বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) কবর থেকে তোলা হয়েছে। ত’দন্ত শেষে জ’ড়িত সবার বি’রুদ্ধে ব্যবস্থা

নেয়া হবে বলে জানিয়েছে পি’বিআই। এদিকে হ’ত্যায় জ’ড়িত পু’লিশ সদস্যদের গ্রে'’ফতারের দাবিতে বি’ক্ষো’ভ কর্মসূচি হয়েছে। আ’দালতের নির্দেশ অনুযায়ী পুনঃম’য়নাত’দন্তের জন্য বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) সকাল সোয়া ১০টার দিকে নবাবী মসজিদ গোরস্থান থেকে রায়হানের লা’শ তোলা হয়। পরে ম্যা’জিস্ট্রেট ও পিবিআই কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে সু’রতহাল শেষে লা’শ ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের

ম’র্গে পাঠানো হয়। ত’দন্তকারী কর্মকর্তা পিবিআইর পু’লিশ সুপার জানান, ত’দন্তসাপেক্ষে মা’মলার এজাহারে যাদের নাম আসবে, সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে। পিবিআই পু’লিশ সুপার মো. খালেদুজ্জামান বলেন, ম্যা’জিস্ট্রেটের মাধ্যমে লা’শের সুরতাহাল হয়েছে। হাসপাতালে লা’শ পাঠানো হয়েছে সেখানে পোস্টমর্টেম করা হয়েছে।এরমধ্যেই বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় প্রথম ম’য়নাত’দন্তের রিপোর্ট পিবিআইয়ের কাছে হস্তান্তর করেছে সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগ। ওই রি’পোর্টে উঠে এসেছে ভোঁতা অ’স্ত্রের

আ’ঘাতেই রায়হানের মৃ’ত্যু হয়েছে। ফরেনসিক বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. শামসুল ইসলাম বলেন, ভোঁতা অ’স্ত্রের আ’ঘাত ছিল, সারা শ’রীরেই ছিল। এ ছাড়া দুটি নখ উপাড়ানো ছিল এবং সারা শ’রীরেই অনেক ক্ষ’ত ছিল।রায়হানের বাড়িতে তার আত্মীয়স্বজনের স’ঙ্গে দেখা করেছেন সিএমপি কমিশনার। এ সময় জ’ড়িতদের দৃষ্টান্তমূ’লক শা’স্তির আশ্বাস দেন তিনি। এদিকে বৃহস্পতিবারও সিলেটের বন্দরবাজারে পু’লিশি নি’র্যাতনে রায়হান হ’ত্যার বিচারের দাবিতে কয়েকশ’ মানুষ স্লোগান দিয়ে জে’লা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে জড়ো হন। ১১ অক্টোবর নগরীর বন্দরবাজার ফাঁড়িতে পু’লিশি নি’র্যাতনে রায়হানের মৃ’ত্যুর অ’ভিযোগ ওঠে। এ ঘ’টনায় নি’হতের স্ত্রীর করা মা’মলাটি ত’দন্ত করছে পিবিআই। তবে এখনো এ মা’মলায় প্রধান অ’ভিযুক্ত এসআই আকবরসহ কাউকে গ্রে'’ফতার করতে পারেনি পু’লিশ। এবার বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা হচ্ছে না! করো’নাভাই’রাস পরিস্থিতির মধ্যে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা ভর্তি পরীক্ষা নিতে চান না। তবে এইচএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণের জন্য নেয়া টেস্ট পরীক্ষার ফলাফল মূল্যায়ন করে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির প্রস্তাব এসেছে। এতে অনেকে সায় দিয়েছেন। কেউ আবার এইচএসসি-সমমানের ফলাফলের ওপর ভিত্তি করে ভর্তির প্রস্তাব করেছেন। বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক কাজী শহীদুল্লাহর সঙ্গে উপাচার্যদের ভা’র্চুয়াল বৈঠক শেষে এ তথ্য জানা গেছে। কাজী শহীদুল্লাহ এতে সভাপতিত্ব করেন। সভায় ইউজিসির সদস্য ও দেশের সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শেষে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ে সভায় আলোচনা হয়েছে। কী’ভাবে ভর্তি পরীক্ষা নেয়া যায় সে বিষয়ে সবার কাছে মতামত চাওয়া হয়। করো’না পরিস্থিতির মধ্যে ভর্তি পরীক্ষা আয়োজন করতে প্রায় সবাই আ’পত্তি জানিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, সরাসরি পরীক্ষা আয়োজন করা সম্ভব না হলেও কী’ভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী ভর্তি করানো যায়, সে বিষয়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নিতে বলা হয়েছে। আগামী শনিবার (১৭ অক্টোবর) পাবলিক উপাচার্য পরিষদের সভায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হতে পারে। মিজানুর রহমান বলেন, ভর্তি পরীক্ষা আয়োজন করতে গিয়ে পরীক্ষার্থীদের কেউ করো’নায় আ’ক্রান্ত হলে নতুন সঙ্কট সৃষ্টি হতে পারে। এই ইস্যুতে শিক্ষার্থীরা আ’ন্দোলনে নামতে পারে। এসব বিষয় বিবেচনা করে ভর্তি পরীক্ষা আয়োজন করা হবে নাকি ভিন্ন পদ্ধতিতে ভর্তি করানো হবে আলোচনার মাধ্যমে সেসব বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।সভায় ভর্তি পরীক্ষা না নিয়ে এইচএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণের আগে টেস্ট পরীক্ষার ফলাফল মূল্যায়ন করে ভর্তি করার প্রস্তাব দেন সিরাজগঞ্জের রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক রফিকুল্লাহ খান। তিনি বলেন, করো’না পরিস্থিতিতে ভর্তি পরীক্ষা নেয়াটা ঝুঁ’কিপূর্ণ। আবার শিক্ষার্থীদের ভর্তি না করালেও নতুন সঙ্কট তৈরি হবে। যেহেতু পরীক্ষা বাতিল করে জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষার মাধ্যমে এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হবে- তাই এ ফল মূল্যায়ন করে ভর্তি না করে এইচএসসির টেস্ট পরীক্ষার ফলাফল মূল্যায়ন করে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির প্রস্তাব জানান তিনি। তার এ প্রস্তাবে কয়েকজন উপাচার্য সম্মতি দিয়েছেন। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক হারুন অর রশিদ বলেন, কয়েক বছর ধরে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি করানো হচ্ছে। যেহেতু এবার ভর্তি পরীক্ষা আয়োজন করাটা কঠিন হয়েছে দাঁড়িয়েছে, তাই দুই পাবলিক পরীক্ষার ফলের ভিত্তিতে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির প্রস্তাব দেন তিনি। ইউজিসির সদস্য অধ্যাপক ড. মোহাম্ম’দ আলমগীর বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির বিষয় নিয়ে উপাচার্যদের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। পরীক্ষা না নিয়ে ভিন্ন পদ্ধতিতে ভর্তি করাতে অনেকে ভিন্ন ভিন্ন মত দিয়েছেন। বর্তমান পরিস্থিতিতে পরীক্ষা আয়োজন করাটা ঝুঁ’কিপূর্ণ বলেও অনেকে মন্তব্য করেন।তিনি বলেন, ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত না হলেও আগামী শনিবার ভিসিরা বৈঠক করে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়ে আমাদের সঙ্গে আবারও বৈঠক করার কথা রয়েছে।

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *