ট্রাম্পের মাথায় পানি ঢালার ছবি ভাইরাল

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের চূড়ান্ত ফল ঘোষণার অপেক্ষায় মার্কিনিরা। পরিশেষে ক্ষমতার মসনদে কে বসবেন- তা নিয়ে চরম অনিশ্চয়তা কাজ করছে ডেমোক্র্যাট ও

রিপাবলিকান শিবিরে। জো বাইডেন এগিয়ে থাকলেও ভোট গণনা বন্ধে ডোনাল্ড ট্রাম্পের একাধিক মামলায় এই শঙ্কা তৈরি হয়েছে। তারপরও জয়ের একেবারে

দোরগোড়ায় থাকা বাইডেনের ইলেক্টোরাল কলেজ ভোট ২৬৪–তে পৌঁছেছে। এর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ জর্জিয়া রাজ্যে ভোট গণনায় জো বাইডেন এখন ডোনাল্ড ট্রাম্পের চেয়ে ৯০০ ভোটে এগিয়ে গেছেন। আর মাত্র কয়েক হাজার ভোট গণনা বাকি আছে। জর্জিয়ার ১৬টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোট রয়েছে। এই রাজ্য বাইডেনের পক্ষে গেলে তার থলিতে ২৬৯টি ইলেকটোরাল ভোট আসবে, অর্থাৎ চূড়ান্ত বিজয়ের জন্য মাত্র একটি বাকি থাকবে। জয়ের জন্য প্রয়োজন ২৭০ ইলেকটোরাল

ভোট। এদিকে, ২১৪ ইলেক্টোরাল ভোট পাওয়া ট্রাম্প শিবিরে হতাশা বাড়ছে। কিন্তু ট্রাম্প বরাবরই আশাবাদী। ভোটে পিছিয়ে থাকলেও যুক্তরাষ্ট্র ছাপিয়ে দেশে দেশে নেটিজেনদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে এই রিপাবলিকান প্রার্থী। এরই মধ্যে ভাইরাল হয়েছে ট্রাম্পের মাথায় দুই নারীর পানি ঢালার একটি স্থিরচিত্র। রসিকতা ও ঠাট্টার ছলে এই ছবির অসংখ্য পোস্টে সয়লাব ফেসবুক। ছবিটি শেয়ার করে ইসরাত জাহান নামে একজন ফেসবুকে লিখেছেন, ‘মসনদ হারাতে বসে ট্রাম্প পাগল হয়ে গেছে, তার মাথায় পানি ঢেলে ঠাণ্ডা করা হোক। পরাজয় ঠেকাতে শেষে আইনি প্যাঁচ খুঁজছে, তবে শেষ রক্ষ হবে না।’ মাসুদুর রহমান নামে আরেকজন লিখেছেন, ‘২০০০ সালের নির্বাচনের মতো জর্জ ডব্লিউ বুশ হতে চেয়ে লাভ নাই। কাজ হবে না আদালতে গিয়ে; মাথা ঠাণ্ডা করো মি. প্রেসিডেন্ট। সুইটি

খানম নামে একজন লিখেছেন, ‘ট্রাম্পের জন্য খারাপ লাগছে বেচারির দ্বিতীয়বারের প্রেসিডেন্ট হওয়া বুঝি আর হচ্ছে না। এসময় তাকে যেখানে তার বউ মাথায় পানি ঢালবে সেখানে এরা কারা। মানতে পারছি না।’ ভাইরাল হওয়া ছবিটি নিয়ে রজিবুল হাসান নামে আরেকজন ফেসবুকে লিখেছেন, ‘আহারে ট্রাম্প, মাথা ঠাণ্ডা করো। এই সময় গরম হয়ে লাভ নাই। তোমার ক্ষমতার বাহাদুরি শেষ। অনেক করছেন- এবার অফ যান।’ মোশাররফ হোসেন নামে একজন লিখেছেন, ‘এই রকম দুঃসময়ে থাকা ট্রাম্পকে নিয়ে মজা করা ঠিক না। পুরনো ছবি নিয়ে তাকে ট্রল করা হচ্ছে। এইটাতো ২০১৪ সালের ছবি। তিনি যাইহোক বিশ্ব নেতা হিসেবে মাতিয়ে রাখতেন আমাদের।’ রবিন বাহার নামে আরেকজন ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, ‘ট্রাম্পের অতি উৎসাহই তাকে পতনে ঠেলে দিয়েছে। তিনি করোনা নিয়ে যে রসিকতা মার্কিনিদের সাথে করেছেন, তা এখন ভোটে হেরে নিজেই টের পাচ্ছেন।’ উল্লেখ্য, বর্তমানে ফেসবুকে ট্রাম্পের মাথায় পানি ঢালার ভাইরাল হওয়া ছবিটি ২০১৪ সালের। এটা মূলত আইস বাকেট চ্যালেঞ্জ, যা স্থিরচিত্র নয় একটি ভিডিও। যেখানে দুইজন নারী ট্রাম্পের সাথে এই চ্যালেঞ্জে অংশ নেন। ২০১৪ সালের ২৯ আগস্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হওয়ার দুই বছর আগেই- এই চ্যালেঞ্জ ক্যাম্পেইন করেন। যা তিনি তার সোশ্যাল সাইটগুলোতে শেয়ার করেন। মজার বিষয় হচ্ছে, ২০১৪ সালে শুধু ট্রাম্পই নন; যুক্তরাষ্টের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা, পপ তারকা জাস্টিন বিবার ও টেইলর সুইফ্ট থেকে শুরু করে বাস্কেটবল কিংবদন্তি লেব্রন জেমস, অভিনেতা হিউ জ্যাকম্যান, ফেসবুকের মার্ক সাকারবার্গসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের তারকা ও সাধারণ নেটিজেনরা এই চ্যালেঞ্জে অংশ নেন। ট্রাম্পের সেই ভিডিও’রই একটি স্থিরচিত্র ভাইরাল হয়েছে।

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *