সাকিবের বাসায়ও নিরাপত্তা জোরদার

বাংলাদেশের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের কলকাতায় একটি কালীপূজার উদ্বোধনে থাকা নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা হয়েছে। এমনকি ফেসবুকে এক যুবক তাকে কু'পিয়ে

হত্যা করার হুমকি পর্যন্ত দেন। পরে র‍্যাব সেই ব্যক্তিকে গ্রে'ফতার করেছে। এসবের কারণেই বাড়তি নিরাপত্তা নিয়ে অনুশীলন করেছেন সাকিব। বাসা থেকে কর্মস্থল হোম অব ক্রিকেট মিরপুর শের-ই-বাংলায় পর্যন্ত আসা যাওয়া এবং তার সার্বক্ষণিক চলাচলের সময় একজন সতস্ত্র নিরাপত্তীরক্ষী নিয়োগ দিয়েছে টাইগার ক্রিকেট প্রশাসন। শুধু তাই

নয়, নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে তার ঢাকাস্থ বাসভবন বনানী ডিওএইচএসেও। তবে এর অংশ হিসেবে তার বাসার সামনে পুলিশ বা অন্য কোন বাহিনীর সদস্য নিয়োগ দেওয়া হয়নি। যেটা করা হয়েছে তার বাসাকে সার্বক্ষণিক নজরদারীতে রেখেছে বনানী থানা পুলিশ। বুধবার (১৮ নভেম্বর) রাতে গণমাধ্যমকে এখবর নিশ্চিত করেছেন বনানী থানার ওসি নূরে আজম মিয়া। তিনি জানিয়েছেন,‘সাকিব আল হাসানের বাসায় আমাদের নিরাপত্তা জোরদার আছে, অসুবিধা নেই। যেদিন ওনাকে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে সেদিন থেকেই ওনার বাসা সার্বক্ষণিক নজরদারীতে আছে।’ বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন সাংবাদিকদের বলেন, ‘অবশ্যই বিষয়টি (প্রাণনাশের হুমকি) উদ্বেগজনক। এমন বিষয় কখনোই কাঙ্ক্ষিত হতে পারে না। আমরা সেটা জানার পর তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা নিয়েছি। সরকারের সংশ্লিষ্ট নিরাপত্তা সংস্থাগুলোকে আমরা

বলেছি। আপনারা দেখেছেন, তারাও যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন। তিনি বলেন, ‘বিসিবির নিরাপত্তা বিভাগ থেকে সাকিবের জন্য একজন নিরাপত্তারক্ষীকে দায়িত্ব পালন করতে পাঠানো হয়েছে। যেহেতু একটা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি জিনিস এসেছে, সে কারণে এই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।’ তবে বিসিবি প্রধান নির্বাহী সাকিবকে এভাবে হুমকি প্রদানের বিষয়টিকে বিছিন্ন ঘটনা হিসেবে দেখতে চান। তিনি বলছিলেন-‘এটা নিয়ে আমরা খুব বেশি যে উদ্বিগ্ন, তা কিন্তু নয়। তবে আমরা আমাদের ক্রিকেটারদের সবরকম নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চাই। মানসিকভাবে তাদের প্রফুল্ল ও স্বস্তিতে রাখতে চাই।’ উল্লেখ্য, দেশে ফেরার পর থেকেই সাকিব অনুশীলনের পাশাপাশি মাঠের বাইরেও ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। ৫ নভেম্বর রাতে ঢাকায় পা রেখে পরদিন সকালেই গুলশানে সুপারশপ উদ্বোধন করেছেন জনসমাগমে গিয়ে। করোনার মধ্যে মানুষের ভিড়ে যাওয়ার কারণে সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। এরপর কলকাতায় গিয়ে সাকিবের পূজা উদ্বোধনের খবর আসে সংবাদমাধ্যমে। ফেসবুকে সাকিবকে হত্যার হুমকি দেওয়া হয় এ কারণেই। সাকিব অবশ্য নিজের ইউটিউব চ্যানেলে দেওয়া এক ভিডিও বার্তায় পূজা উদ্বোধনের কথা অস্বীকার করেছেন। বাংলাদেশে ক্রিকেটের কারও সঙ্গে গানম্যান দেওয়া অবশ্য এবারই প্রথম নয়। এর আগে হোলি আর্টিজেনে জঙ্গি হামলার পর জাতীয় দলের সাবেক কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহেসহ অন্য বিদেশি কোচদের নিরাপত্তায় সার্বক্ষণিক গানম্যান নিয়োগ করেছিল বিসিবি।

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *