যন্ত্রণায় ছটফট করছিলেন গর্ভবতী মেয়ে, মায়ের এক ফোনেই বেঁচে গেলেন প্রসূতি-সন্তান

প্র’সব য’ন্ত্র’ণায় ছ’টফ’ট করছিলেন গ’র্ভব’তী মেয়ে। এমন কষ্ট দেখে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের হটলাইন নম্বরে কল দেন তার মা। এতে তাৎক্ষণিক মেলে সেবা।

সিজারের মাধ্যমে জন্ম দেন ফুটফুটে সন্তান। মায়ের ফোনে প্র’সূ’তি ও ন’বজা’তক বেঁচে যাওয়ায় খুশি পুরো পরিবার। সোমবার রাতে জয়পুরহাট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে

স’ন্তান প্র’স’ব করেন তানিয়া নামে ওই গ’র্ভব’তী। তার বাড়ি জেলার আক্কেলপুর উপজেলার চাপাডাল গ্রামে। জানা গেছে, টাকার অ’ভাবে কোনো ক্লিনিকে যেতে না পেরে নিজ বাড়িতেই প্রস’ব য’ন্ত্র’ণা’য় কা’তরা’চ্ছি’লেন তানিয়া। এ সময় মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের হটলাইন নম্বরে কল দেন তার মা মরিয়ম বেগম। ফোন পেয়ে

বাড়িতে তাৎক্ষণিক অ্যা’ম্বুলে’ন্স পাঠানো হয়। এরপর সোমবার রাতেই মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে নেয়া হয়। সেখানে সি’জা’রের মাধ্যমে সন্তান প্রসব করেন তানিয়া। প্র’সূ’তির মা মরিয়ম বেগম বলেন, এক প্রতিবেশীর পরামর্শে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের হটলাইন নম্বরে কল দেই। পরে কর্তৃপক্ষ আমাদের বিনামূল্যে সেবা দেয়। মেয়ে ও নবজাতক বেঁ’চে যাওয়ায় আমরা অনেক খুশি। জয়পুরহাট পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপ-পরিচালক ডা. জোবায়ের গালিব বলেন, প্র’সব য’ন্ত্র’ণা’য় দ’রি’দ্র পরিবারের এক নারী কা’তরা’চ্ছি’লেন বলে আমাদের হটলাইন নম্বরে কলের মাধ্যমে জানতে পারি। এরপর ওই বাড়িতে অ্যাম্বুলেন্স পাঠিয়ে প্র’সূ’তিকে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে আনা হয়। পরে ডা. শাহানাজ পারভীনের তত্ত্বাবধানে সি’জা’রের মাধ্যমে স’ন্তান প্র’সব করেন ওই নারী।

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *