আমরা আলাদা হয়ে ভালো আছি, ভালো থাকতে দেন

নেটিজেনদের ওপর কেন ক্ষিপ্ত হবেন না অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া! তাঁর ও হারুনুর রশীদ অপুর বিচ্ছেদ হয়েছে বেশ কয়েক মাস আগে। কিন্তু নেটিজেনদের তাঁদের নিয়ে

আগ্রহ কমেনি। ফেসবুকে অপুর ছবি বা স্ট্যাটাসের মন্তব্যের ঘরে তেমনটিই দেখা যায়। তাঁর ফেসবুক ওয়ালে ব্যক্তিগত, পারিবারিক কোনো ছবি বা যেকোনো স্ট্যাটাসের মন্তব্যের

ঘরে অনেকেই ফারিয়াকে জড়িয়ে নানা কটু ও উসকানিমূলক কথা লিখে বসেন। কখনো কখনো কমেন্টের ঘরে ফারিয়ার ছবি পোস্ট করে দেন। এ ব্যাপারে সব সময়ই সহনশীলতার পরিচয় দিয়েছেন অপু। এসব মন্তব্য দেখে রাগান্বিত না হয়ে শালিনভাবে জবাব দেন তিনি। শবনম ফারিয়া। ছবি : ইনস্টাগ্রাম থেকে শবনম ফারিয়া। ছবি :

ইনস্টাগ্রাম থেকে বিচ্ছেদ হলেও অপুর সঙ্গে বন্ধুত্ব নষ্ট হয়নি ফারিয়ার। ফেসবুকেও তাঁরা এখনো বন্ধু। তাই প্রায়ই অপুর মন্তব্যের ঘরে আপত্তিকর মন্তব্যগুলো ফারিয়ার নজরে আসে। সেসব দেখতে দেখতে বিরক্ত হয়ে শুক্রবার রাতে ফেসবুকে একটি বড় স্ট্যাটাস দিয়েছেন ফারিয়া। সেখানে অপুকে শ্রদ্ধা ও সম্মান জানিয়েছেন তিনি। তবে তাঁর লেখায় ক্ষোভ প্রকাশ পেয়েছে বেফাঁস মন্তব্যকারীদের ওপর। ফারিয়া লিখেছেন, ‘অপুর কমেন্ট সেকশনে মানুষের কমেন্ট পড়ে আমি নির্বাক তাকিয়ে থাকি! অপুর প্রতি মন থেকে আমার কৃতজ্ঞতা তাঁর এই সহনশীলতার জন্য। তাঁর এই ধৈর্যের জন্য তাঁর প্রতি আমার সম্মান অনেক বেড়ে গেল।’ তবে স্ট্যাটাসের আরেক অংশে মন্তব্যকারীদের ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি লিখেছেন, ‘ভাই, আমাদের বিবাহবিচ্ছেদ কেন হয়েছে, আপনি জেনে কী করবেন? আমরা যদি আলাদা হয়ে ভালো থাকি, আপনার কি কোনো সমস্যা

হচ্ছে? নাকি গিফট পাঠাবেন কোনো? আর যদি খারাপও থাকি, আপনি কি আজ রাতে না খেয়ে থাকবেন?’ শবনম ফারিয়া। ছবি: প্রথম আলো শবনম ফারিয়া। ছবি: প্রথম আলো স্ট্যাটাসে মন্তব্যকারীদের পাশাপাশি লেখার এক লাইনে সাংবাদিকদেরও ছাড়েননি তিনি। এই অভিনেত্রী লিখেছেন, ‘আমি পাবলিক ফিগার, তাই আপনারা অনেকেই ভেবে নেন আমাকে যা খুশি বলা যাবে। ফাইন, আমি মেনে নিয়েছি। সাংবাদিক ভাইয়েরা যা মন চায় শিরোনাম দিয়ে নিউজ করেন। সব ঠিক আছে। কিন্তু এই ছেলেটাকে (অপু) কেন? কী মজা অন্যকে ছোট করে?’ তিনি আরও লিখেছেন, ‘তিন মাসও হয়নি একটা মানুষ বিচ্ছেদের মতো একটা বিষয়ের মধ্য দিয়ে গেছে। কেন তাঁকে অপ্রয়োজনীয় কমেন্ট করে হ্যারাস করা হচ্ছে? কেমন ফান এটি? অন্যের কষ্ট দেখে একটা মানুষের কীভাবে আনন্দ লাগতে পারে। এটা তো অসুস্থতা।’ শবনম ফারিয়া । ছবি সংগৃহীত। শবনম ফারিয়া । ছবি সংগৃহীত। স্ট্যাটাসের আরেক অংশে মন খারাপের কথা জানিয়ে তিনি লিখেছেন, ‘বিশ্বাস করেন, বিবাহবিচ্ছেদের চেয়ে কষ্টের কিছু একটা মানুষের জীবনে ঘটতে পারে না! প্রিয় মানুষের মৃত্যু অনেক কষ্টের, কিন্তু জীবিত প্রিয় মানুষের থেকে বিচ্ছেদ কত কষ্টের, এর মধ্য দিয়ে যে না যায়, সে বুঝবে না।’ মন্তব্যকারীদের কাছে ক্ষমা চেয়ে এমন সব মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকার অনুরোধ করেছেন ফারিয়া। লিখেছেন, ‘দয়া করে এবার ক্ষমা করেন। আমরা আলাদা হয়ে ভালো আছি। আমাদের ভালো থাকতে দেন। আমাদের নিয়ে আপনাদের চিন্তিত হতে হবে না! চিন্তিত হওয়ার জন্য আমাদের পরিবার, আত্মীয়স্বজন এবং বন্ধুবান্ধব আছে। আপনারা নিজের চরিত্র, পরিবার এবং সংসারের দিকে মন দেন, যাতে আপনাদের সংসার টিকে যায়।’

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *