যে কারণে শ্রীলংকার বিপক্ষে জয়ে আশাবাদী মিরাজ

নিউজিল্যান্ড সফরের দুঃসহ স্মৃতি কাটিয়ে উঠতে এখন জয় ছাড়া কোনো বিকল্প নেই। তাই যে করেই হোক, লংকার মাটিতে লংকাবধের

মিশনের নামতে হবে মোমিনুল বাহিনীকে। যদিও টেস্টে বাংলাদেশ দলের পারফরম্যান্স খুবই করুণ। অলরাউন্ডার সাকিবের অনুপস্থিতিতে ঘরের

মাঠে সবশেষ টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের আনকোরা দলের বিপক্ষে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে টাইগাররা। তবুও সমর্থকদের ভালো কিছু উপহার দেওয়ার আশা ব্যক্ত করেছেন বাংলাদেশ দলের অফ-স্পিনিং অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ। শ্রীলংকার চেয়ে নিজেদের খুব বেশি পিছিয়ে রাখছেন না তিনি। জয়ে আশাবাদী তিনি। শুক্রবার অনুশীলনের পর মিরাজ বলেন, ‘শ্রীলংকায় আমরা অনেকবার ভালো ক্রিকেট খেলেছি। অল্পের জন্য

আমরা নিদাহাস ট্রফির ফাইনালে জিততে পারিনি। নিজেদের শততম টেস্টে এখানে আমরা জিতেছি। ওই ম্যাচের আগে আমাদের সবারই ভালো করার তাগিদ ছিল। ম্যাচে চেষ্টা করেছিল সবাই। ওই সিরিজে তারা একটি এবং আমরা একটি টেস্ট জিতেছি। তার আগে ওয়ানডে সিরিজে আমরা একটা ম্যাচ জিতেছি। তাই আমরা খুব একটা পিছিয়ে নেই।’ অর্থাৎ শততম টেস্ট জয়ের সেই আত্মবিশ্বাস নিয়ে খেলতে পারলে এবারও

বাংলাদেশ দল ভালো কিছু করবে বলে আশা মিরাজের। তাছাড়া শ্রীলংকার উইকেট নিউজিল্যান্ড থেকে একেবারে আলাদা। অনেকটা বাংলাদেশের মতোই স্পিন-সহায়ক। আর টেস্ট ফরম্যাটে বাংলাদেশ দলের প্রধান শক্তি স্পিন ডিপার্টমেন্ট। টেস্টে বরাবরই বাংলাদেশ স্পিনারদের ওপর নির্ভরশীল। এই বিষয়টির কথাও জানালেন মিরাজ। বললেন, ‘চ্যালেঞ্জ প্রত্যেক ক্ষেত্রেই থাকবে। স্পিনারদের জন্য শ্রীলংকায় লাইন-লেন্থ গুরুত্বপূর্ণ। এখানে উইকেট খুব ভালো থাকে। প্রথম দু-একদিনে স্পিনে কাজ না-ও হতে পারে। কিন্তু তৃতীয় ও চতুর্থদিনে উইকেট স্পিনারদের

সহায়তা করে। সেই সুযোগ আমরা নিতে পারি।’ সফরে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের দুটি ম্যাচই হবে ক্যান্ডির পাল্লেকেলে স্টেডিয়ামে। প্রথমটি শুরু হবে ২১ এপ্রিল।

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *