কেন্দ্রীয় কারাগারের আইসোলেশন সেন্টারে মামুনুল হক

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের একটি ওয়ার্ডের আইসোলেশন সেন্টারে নেওয়া হয়েছে হেফাজতে ইসলামের বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব ও

ঢাকা মহানগরীর সাধারণ সম্পাদক মামুনুল হককে। সেখানে তাকে ১৪দিন কোয়ারেন্টিনে রাখা হবে। সোমবার (১০ মে) বিকেল ৩টার দিকে

তাকে আদালত থেকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে (কেরানীগঞ্জ) নেওয়া হয়। সম্পর্কিত খবর ‘ধর্মকে সামনে এনে মানুষদের বিভ্রান্ত করেছে জামায়াত-হেফাজত’ জবানবন্দি দিলেন পদত্যাগ করা হেফাজত নেতা কাসেমী ঈদের আগেই জাকাত-ফিতরা বিলি-বণ্টন করে দিন: বাবুনগরী ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার মাহবুবুল ইসলাম জানান, বিকেল তিনটার দিকে মামুনুল হক কারাগারে আনা হয়েছে। তাকে সরাসরি

কারাগারের ভেতরে আইসোলেশন সেন্টার রাখা হয়েছে। সেখানে ১৪দিন থাকবেন। তিনি জানান, করোনাভাইরাসের প্রতিরোধে গত বছর এ আইসোলেশন সেন্টার উদ্বোধন করা হয়েছে। করোনাকালীন সময় নতুন কোনো বন্দি এলেই তাকে ১৪ দিন আইসোলেশন সেন্টার রাখা হয়। প্রসঙ্গত, হেফাজতে ইসলামের বিলুপ্ত কমিটির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হককে তৃতীয় দফায় পাঁচ দিনের রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানো

হয়েছে। সোমবার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট নিভানা খায়ের জেসি তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আগমনের বিরুদ্ধে সাম্প্রতিক কর্মসূচিকে ঘিরে সহিংসতার পৃথক ঘটনায় দুই মামলায় গত ৪ মে মামুনুলের পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। সেই রিমান্ড শেষে তাকে আদালতে হাজির করে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল না হওয়া পর্যন্ত কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন। শুনানি শেষে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। গত ১৯ এপ্রিল মামুনুলকে মোহাম্মদপুর থানার হামলা, মারধর ও চুরির মামলায়

প্রথম দফায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। এরপর গত ২৬ এপ্রিল হেফাজতের সমাবেশকে ঘিরে ২০১৩ সালের পল্টন ও মতিঝিল থানার দুই মামলায় সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়। এরপর গত ৪ মে তৃতীয় দফায় তার পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়। গত ১৮ এপ্রিল দুপুরে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া মাদরাসা থেকে মামুনুলকে গ্রে'প্তার করে পুলিশ।

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *