‘কারও ধর্মীয় বিশ্বাসে আঘাত হানা যাবে না’- ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন এবং সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আমরা ঐতিহ্যগত সব ধর্মের মানুষের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সহাবস্থান

করছি। কারও ধর্মীয় বিশ্বাসে আঘাত হানা যাবে না। বুধবার সংসদ ভবন এলাকায় নিজের সরকারি বাসভবন থেকে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ

আহ্বান জানান। কাদের বলেন, আমরা গভীর উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করেছি- সম্প্রতি ধর্মীয় ইস্যুসহ নানান ইস্যুতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি মতলবি-মহল উদ্দেশ্যমূলক গুজব ছড়াচ্ছে, রাষ্ট্র ও সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। তারা সামাজিক শান্তি, স্বস্তি এবং আমাদের ঐতিহ্যগত সব ধর্মের মানুষের বন্ধুত্বপূর্ণ সহাবস্থান নষ্ট করতে চায়। এসব মিথ্যা প্রচারণা নিঃসন্দেহে শাস্তিযোগ্য অপরাধ। সেতুমন্ত্রী বলেন, সম্প্রতি লালমনিরহাটের পাটগ্রাম এবং কুমিল্লার মুরাদনগরে দুটি

ঘটনা অত্যন্ত দুঃখজনক। আমাদের প্রতিটি ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে হবে। হতে হবে পরধর্ম সহিষ্ণু। কেউ কারও ধর্মবিশ্বাসে আঘাত করে বা কটাক্ষ করে পোস্ট দেয়া প্রত্যাশিত নয়। এ ধরনের উসকানিমূলক পোস্ট শাস্তিযোগ্য অপরাধ। উসকানিমূলক কিছু নজরে এলে আইন নিজের হাতে তুলে না নিয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে জানাতে বলেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক। করোনার ব্যাপক সংক্রমণ ঠেকাতে জনগণকে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে সরকার কঠোর হতে যাচ্ছে বলে জানান তিনি। কাদের বলেন, মাস্ক ব্যবহারসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনে শিথিলতা দেখে সরকার সম্ভাব্য পরিস্থিতি মোকাবেলায় ‘নো মাস্ক, নো সার্ভিস’ নীতি ঘোষণা করেছে। তিনি বলেন, এ নীতি কঠোরভাবে প্রতিপালন করতে হবে। যেকোনো সমাগমে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। জনগণের সুরক্ষায় এ বিষয়ে শেখ হাসিনা সরকার ধীরে ধীরে আরো কঠোর অবস্থানের দিকে যাচ্ছেন।

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *