সাকিবের পর এবার বোমা ফাটালেন মাশরাফি!

সাকিব আল হাসানের একটি সাক্ষাৎকারকে কেন্দ্র করে তুমুল আলোচনা-সমালোচনার মধ্যেই এবার বিসিবির কর্তা ব্যক্তিদের নিয়ে মুখ খুললেন

বাংলাদেশ ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে সফল অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তোজা। ক্রিকেট বোর্ডের কর্মকর্তাদের ভূমিকা নিয়ে প্রকাশ্যেই ক্ষোভ

ঝেড়েছেন তিনি। দেশের বেসরকারি টিভি চ্যানেল ‘একাত্তর টিভি’র সঙ্গে আড্ডায় অংশ নিয়ে মাশরাফির দেয়া সাক্ষাৎকারের প্রোমো ভিডিও প্রকাশ হয়েছে। ওই ভিডিওতে ম্যাশ তার অবসরে যাওয়া, ফিটনেস ও বোর্ডের বিভিন্ন বিষয়ে সোজাসাপ্টা কথা বলেছেন। মাশরাফি বলেছেন, ‘দেশের ক্রিকেট নিয়ে যে মানুষগুলো এখন কথা বলছে, ওদের অবদান কী?’ অবদানগুলো যদি আমি তুলে ধরি সেটা তো খারাপ হয়ে যাবে।

একটা ওয়ার্ল্ডকাপে ৫০ জন যাচ্ছেন। মাশরাফির চৌদ্দগোষ্ঠী উদ্ধার করেছেন, কিন্তু কেউ কি নিজের টাকায় গেছে নাকি, একটু শোনেন তো।’ ‘ফিটনেস ইস্যুতে মাশরাফিকে হয়তোবা ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে রাখা হবে না’- বিসিবি সভাপতির এমন মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় ওই সাক্ষাৎকারে মাশরাফি বলেন, ‘ডেটাগুলো একটু বের করে দেখেন, আমার একটা ফিটনেস টেস্ট ফেল আছে কিনা। আমি তো এগুলো ক্যামেরার সামনে

এসে বলি নাই। আমাকে বাদ দেয়ার সময় কোনও আলোচনাই আমার সঙ্গে করা হয়নি। অথচ বিসিবি বলছে- ‘আলোচনা হয়েছে’।’ সাকিবের পর মাশরাফির এমন ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়ায় নতুন করে নড়েচড়ে বসেছে দেশের ক্রিকেটাঙ্গন ও ক্রিকেটপ্রেমীরা। মূলত আলোচনার সূত্রপাত শ্রীলঙ্কায় টেস্ট সিরিজ বাদ দিয়ে সাকিবের আইপিএল খেলতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত থেকে। এ নিয়ে ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান থেকে শুরু করে দেশের ক্রিকেটমহল পক্ষ-বিপক্ষ ‍দুই ভাগে ভাগ হয়ে যায়। এরপর গেল শনিবার (২০ মার্চ) রাতে ক্রিকেট ওয়েবসাইট ক্রিকফ্রেঞ্জির আয়োজনে একটি ভিডিও সাক্ষাৎকারে সাকিব তার আসন্ন আইপিএল খেলা ও শ্রীলঙ্কায় টেস্ট না খেলা নিয়ে বিতর্কের যৌক্তিক জবাব দেন। ওই সাক্ষাৎকারে তিনি

বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খানকে কাঠগড়ায় দাঁড় করানো এবং বোর্ডের আরও কিছু কর্মকাণ্ড নিয়ে অভিযোগ করলেও বোর্ড প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান ও এইচপি দলের দায়িত্বে থাকা খালেদ মাহমুদ সুজনের প্রশংসা করেন। ওই সাক্ষাৎকারে সাকিব দাবি করেন, তার ছুটির আবেদনপত্র নিয়ে বিসিবি ভুল ব্যাখ্যা করেছে। বিসিবির নানা পর্যায় থেকে বলা হয়েছে, সাকিব শ্রীলঙ্কায় বাংলাদেশের টেস্ট সিরিজ খেলতে চান না। তবে ওই সাক্ষাৎকারে সাকিব দাবি করেন, আকরাম খান তার আবেদনপত্র পড়েই দেখেননি ঠিকমতো। তিনি শুধু বিশ্বকাপ প্রস্তুতির জন্য আইপিএল খেলতে চাওয়ার কথাই কথাই বলেছেন। সাকিবের শ্রীলঙ্কা সফর থেকে ছুটি চাওয়ায় তখন সবচেয়ে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান। সাকিব টেস্ট খেলতে ‘ইচ্ছুক নন’ বলেও তখন জানান বিসিবি সভাপতি। কিন্তু ওই ভিডিও সাক্ষাৎকারে সাকিব দেশের ক্রিকেট নিয়ে বোর্ড সভাপতির ভাবনার প্রশংসা করেন। সাক্ষাৎকারে সাকিব বলেন, ‘আমাদের এইচপি শেষ

চার-পাঁচ বছরে কয়টা খেলোয়াড় তৈরি করেছে, আমি জানি না। ক্রিকেট বোর্ডে এখন অনেকেই আছেন, তারা একসময় বাংলাদেশ দলের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। তারা আসলে (বোর্ডে) কী নিয়ে কাজ করছেন, আমি জানি না।’ তবে বোর্ডের দায়িত্বে থাকা জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়কদের নিয়ে সাকিবের এমন মন্তব্য ‘অনুচিত’ বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন বিসিবির আরেক কর্তাব্যক্তি নাইমুর রহমান দুর্জয়।

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *