নারায়ণগঞ্জের তাণ্ডবে সংশ্লিষ্টতা মিলেছে মামুনুলের

নারায়ণগঞ্জে তাণ্ডবের ঘটনায় দায়ের করা একটি মামলায় প্রাথমিক তদন্তে হেফাজতের যুগ্ম মহাসচিব হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব ও

ঢাকা মহানগরীর সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মামুনুল হকের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) দুপুরে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের

সঙ্গে আলাপকালে একথা জানান বলে জানিয়েছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) প্রধান ব্যারিস্টার মাহবুবুর রহমান। সম্পর্কিত খবর হেফাজতের তাণ্ডবে বিএনপি জড়িত, তা সবাই জানে: কাদের আরেক মামলায় মামুনুলকে গ্রে'প্তার দেখিয়ে রিমান্ড চাইবে সিআইডি দুই নারী সঙ্গীর বিষয়ে পুলিশকে যা বললেন মামুনুল তিনি জানান, মামুনুল বর্তমানে অন্য একটি মামলায় রিমান্ডে আছেন। সেটির রিমান্ড শেষ হলে

তাকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে আবেদন করবে সিআইডি। এরই মধ্যে হেফাজতের বিরুদ্ধে দায়ের করা ২৩টি মামলার তদন্তভার পেয়েছে সিআইডি। ২৩টি মামলার মধ্যে রয়েছে নারায়ণগঞ্জ ২, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ১৫, কিশোরগঞ্জ ২, চট্টগ্রাম ২ মুন্সিগঞ্জের ২টি। হত্যা, বিস্ফোরক, নাশকতাসহ নানা অভিযোগে এসব মামলা দায়ের করা হয়। সিআইডি প্রধান বলেন, হেফাজতে ইসলাম মার্চ মাসের শেষ থেকে শুরু

করে এপ্রিল পর্যন্ত সারাদেশে দাবি-দাওয়া আদায়ের নামে জ্বালাও-পোড়াও করেছে, আগুন নিয়েছে, অবরোধ করেছে, হরতালের ডাক দিয়েছে। যা প্রচলিত আইনানুযায়ী অন্যায়। ইতোমধ্যে আমরা ২৩টি মামলার তদন্তভার পেয়েছি। আমরা প্রচলিত আইনানুযায়ী তা তদন্ত করবো। আমাদের ফরেনসিক, ডিএনএ, অভিজ্ঞ তদন্ত কর্মকর্তা রয়েছেন, সাইবার এক্সপার্ট রয়েছেন। তারা বিষয়গুলো খতিয়ে দেখছেন। এসব মামলায় মামুনুল

হকের কোনো সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে কিনা- জানতে চাইলে মাহবুবুর রহমান বলেন, আমরা প্রাথমিকভাবে তার সংশ্লিষ্টতা পেয়েছি। তিনি একটি মামলায় রিমান্ডে আছেন। সেটি শেষ হলে আমরা তাকে রিমান্ডে আনবো। কোন মামলায় তার সংশ্লিষ্টতা পেয়েছে সিআইডি তা জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রাথমিকভাবে নারায়ণগঞ্জে দায়ের করা মামলায় তার সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে। আমরা মামলাগুলো পর্যালোচনা করছি। যদি অন্য কোনো মামলাতেও তার সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায় তাহলে আইনানুগ পদক্ষেপ নেওয়া হবে। আমাদের একাধিক টিম এসব বিষয়গুলো নিয়ে কাজ

করছে। বাবুনগরীসহ হেফাজতের অন্য ঊর্ধ্বতন নেতাদের সংশ্লিষ্টতা পেলে বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হবে কিনা জানতে চাইলে মাহবুবুর রহমান বলেন, আমরা এসব মামলায় প্রাথমিক তদন্তে তিন ধরনের লোকের সংশ্লিষ্টতা পেয়েছি। যারা উপস্থিত থেকেছে, অনুপস্থিত থাকলেও ইন্ধন দিয়েছে এবং দুষ্কর্মে যারা সহযোগিতা করেছে। বাবুনগরীসহ অন্য কারো সংশ্লিষ্টতার বিষয়টি তদন্তের স্বার্থে বলছি না। তবে যদি কারো সংশ্লিষ্টতা পাই তবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আইনের চোখে সবাই সমান। আমরা দ্রুত মামলাগুলো নিষ্পত্তি করে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করবো।

এক প্রশ্নের জবাবে সিআইডি প্রধান বলেন, আমরা আইন অনুযায়ী কাজ করি। তদন্তে যারই সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যাক আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কারণ আইনের চোখে সবাই সমান।

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *